এমপি বদির গাড়িতে গুলি

কক্সবাজারের আলোচিত সংসদ সদস্য (এমপি) আব্দুর রহমান বদির গাড়িতে গুলি চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কাঞ্জরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে এমপি বদি অক্ষত আছেন। টেকনাফ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

হামলার শিকার এমপি আবদুর রহমান বদি বলেন, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কয়েকটি স্থানে স্থানীয় লোকজনের সাথে কুশল বিনিময় শেষে টেকনাফে ফেরার পথে কাঞ্জরপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন সড়কের মোড়ে পিছন থেকে দুর্বৃত্তরা গুলি ছুঁড়ে। তার প্রাণনাশের জন্য পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। অন্যান্য গাড়ির আলোতে জৈনিক আব্দুল্লাহসহ দু’জনকে চিনতে পেরেছেন বলেও জানান তিনি।

হোয়াইক্যং ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফরিদুল আলম জুয়েল বলেন, আমরা কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ পেয়ে দ্রুত সেখানে গিয়ে কাউকে পাইনি। গাড়ির পেছনের গ্লাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাড়িতে এমপি বদির সঙ্গে টেকনাফ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সরওয়ার আলমসহ আরও কয়েকজন ছিলেন।

টেকনাফ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি সরোয়ার আলম জানান, এমপি বদি দলীয় কয়েকজন নেতাসহ নিজস্ব জিপ দিয়ে (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১৩-৬৮৮০) উখিয়া থেকে টেকনাফে ফিরছিলেন। পেছনে অপর আরেকটি গাড়িতে এমপি বদির স্ত্রী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহীন আক্তারও ছিলেন।

হোয়াইক্যং পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তা সুব্রত রায় জানান, এমপি বদির গাড়ি লক্ষ্য করে দুর্বৃত্তরা হামলা করে পালিয়ে যায়। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে খবর পেয়ে দলীয় লোকজন ও এমপি বদির সমর্থকরা ঘটনাস্থলে ভিড় করেন। ঘটনাস্থলে যান টেকনাফ থানার ওসিসহ প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরাও। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে এমপি বদি টেকনাফের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন জানান, ঘটনাটি আসলে কী ঘটেছে আমরা তা তদন্ত করছি। এটি আসলে গুলির আঘাত কিনা সেটিও বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করে বলা যাচ্ছে না। চলন্ত অবস্থায় ইটপাটকেল মারলেও গুলির আওয়াজের মতো হতে পারে। আয়নার ভাঙনটি একটু দ্বিধাদ্বন্দ্বে ফেলেছে। তবে বিষয়টি খুবই গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে, ঘটনার গভীরে গিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY