ডিজিটাল মুদ্রা ‘লিব্রা’ আনছে ফেসবুক

0
11

ডিজিটাল মুদ্রা ‘লিব্রা’ আনার ঘোষণা দিয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। মঙ্গলবার (১৮ জুন) ‘লিব্রা’ নামের ক্রিপটোকারেন্সি উন্মুক্ত করার পরিকল্পনার কথা জানায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এই ডিজিটাল মুদ্রা লেনদেনের জন্য ইতোমধ্যে পেপ্যাল, ভিসা, মাস্টারকার্ড, ইবে, স্পটিফাইয়ের মতো বড় বড় ২৮টি প্রতিষ্ঠানকে যুক্ত করা হয়েছে। ২০১০ সালের প্রথদিকে এ মুদ্রা বাজারে চালু করা হবে বলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরেই ফেসবুকের লিব্রা মুদ্রা নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে আগেই প্রকাশিত হয়েছিল যে, ‘প্রজেক্ট লিব্রা’ নামে একটি প্রকল্পের অধীনে নিজেদের ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা তৈরি করছে ফেসবুক।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লিব্রা আনার পর বিশ্বব্যাপী ব্যাংক পরিষেবায় আমূল পরিবর্তন ঘটবে। এই ক্রিপটোকারেন্সি প্রকল্প সফল হলে, বিশ্বের সব আর্থিক লেনদেন অচিরেই ব্লকচেইন প্রযুক্তির আওতায় চলে আসবে। প্রচলিত মুদ্রা অর্থাৎ ডলার, পাউন্ড, টাকা ইত্যাদির মতো ক্রিপটোকারেন্সিও এক ধরনের ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা বা বিনিময় মাধ্যম। ব্লকচেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে লেনদেনের জন্য ক্রিপটোকারেন্সি ব্যবহার করা হয়।

প্রচলিত এমন মুদ্রা হলো— বিটকয়েন, বিটক্যাশ, মোনেরো, লাইটকয়েন ইত্যাদি। অন্যদিকে ব্লকচেইন হলো তথ্য সংরক্ষণ করার একটি নিরাপদ ও উন্মুক্ত পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে বিভিন্ন ব্লকে একটির পর একটি তথ্য চেইন আকারে সংরক্ষণ করা হয়।

বিশ্বের বৃহৎ আর্থিক লেনদেন পরিষেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক গ্রাহক পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা ফেসবুকের সঙ্গে ক্রিপটোকারেন্সি বিষয়ে চুক্তি করেছে। ফেসবুকের ক্রিপটোকারেন্সি তৈরির জন্য এক কোটি ডলার করে বিনিয়োগ করবে সংস্থাগুলো। এছাড়া জেনেভাভিত্তিক ‘লিব্রা অ্যাসোসিয়েশন’ নামে একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের অধীনে এ ব্যবস্থাটি পরিচালনা করবে।

ডিজিটাল ওয়ালেট হিসেবে ভার্চ্যুয়াল মুদ্রা সংরক্ষণ, আদান-প্রদান ও খরচ করার সুবিধা দিতে ‘ক্যালিব্রা’ নামের একটি সাবসিডিয়ারি চালু করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এটি ফেসবুকের কয়েকশ কোটি ব্যবহারকারীর মেসেজিং প্ল্যাটফর্মের মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে যুক্ত থাকবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত ফেসবুকের ২০০ কোটিরও বেশি মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর কাছে ডিজিটাল মুদ্রা কতটা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, তা যাচাই করতেই অন্য সংস্থাগুলো যোগ দিয়েছে।

দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফেসবুকের এ উদ্যোগটি সফল হলে, তা থেকে লাভবান হওয়ার আশায় মাস্টারকার্ড ও ভিসার মতো সংস্থা ডিজিটাল মুদ্রা ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ফেসবুক নিজেদের ক্রিপটোকারেন্সি ব্যবহার সহজ করতে প্রচলিত এটিএম বুথের মতো ব্যবস্থা রাখার পরিকল্পনা করছে। এসব বুথ থেকে ‘লিব্রা’ দিয়ে দেশের প্রচলিত সরকারি মুদ্রা নিতে পারবেন গ্রাহকরা।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here