রাঙামাটিতে মালবাহী ট্রাকে সন্ত্রাসীদের আগুন

0
3

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধিঃ

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় একটি মালবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার সকাল ৬টার দিকে উপজেলার বাঘাইছড়ি-দীঘিনালা সড়কের রাবার বাগান এলাকায় ট্রাকে এ আগুন দেয় সন্ত্রাসীরা।

গাড়ির হেলপার ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার সকাল ৬টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে বাঘাইছড়িগামী একটি মালামাল বোঝাই ট্রাক অস্ত্রের মুখে থামিয়ে চালক ও হেলপারকে নামিয়ে পেট্রোল ঢেলে গাড়িতে আগুন দেয় চার সন্ত্রাসী। এসময় চারজনের হাতেই অস্ত্র ছিল। আগুনে গাড়িতে থাকা ১০ লাখ টাকার মুদিমালসহ ট্রাকটি পুড়ে যায়।

এতে প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ ঘটনার পরপরই বাঘাইহাট জোন ও হাজাছড়া ৫৪ বিজিবির টহলদলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে চালক ও হেলপারকে উদ্ধার করে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। পরে দীঘিনালা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে এ ঘটনায় অভিযোগের তীর রয়েছে প্রসিত খীসার নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেট্রিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) দিকে।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ট্রাকের মালিক ও বাঘাইছড়ি পৌরসভার সাবেক কমিশনার মো. আলী হোসেন ইউপিডিএফকে দায়ী করে বলেন, আমার গাড়িতে পাহাড়ের আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ আগুন দিয়েছে। আগুন দেয়ার আগে শুকনাছড়া নামক জায়গায় ১ হাজার টাকা চাঁদাও নিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি, এটাই আমার বড় অপরাদ। এজন্য ইউপিডিএফ আমার গাড়িতে আগুন দিয়েছে। না হয় দুইটি গাড়ি একইসঙ্গে আসছিল। একটি ছেড়ে দিয়ে আমার গাড়িতে কেন আগুন দেবে?

মারিশ্যা বাজারের ব্যবসায়ী ও মালামাল পরিবহনকারী সাহাব উদ্দিন বলেন, দীর্ঘদিন যাবত বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল ইউপিডিএফ। কিন্তু সময়মতো চাঁদা না দেয়ায় রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে অতিরিক্ত চাঁদা আদায়সহ নানা রকম হয়রানি করত তারা। কিছুদিন আগেও গাড়িতে ঢিল ছুড়ে গ্লাস ভেঙে দেয় এবং আজ সকালে গাড়িতে আগুন দেয়।

তবে অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে ইউপিডিএফের প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের প্রধান নিরন চাকমার মুঠোফোনে কল করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

অপরদিকে এ ঘটনার পর সীমানা জটিলতায় নানা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিচ্ছে পুলিশ। এ প্রসঙ্গে বাঘাইছড়ি থানা পুলিশের ওসি আবুল মনজুর বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। ঘটনাস্থল সাজেক থানার আওতাধীন হওয়ায় সাজেক থানার ওসি বিষয়টি দেখছেন।

তবে সাজেক থানা পুলিশের ওসি নুরুল আনোয়ার বলেন, ঘটনাস্থলটি আমার থানায় পড়েনি। কবাখালি দিঘিনালা থানায় পড়েছে।

LEAVE A REPLY