শিক্ষা প্রশাসনে একদিনে ১০৬ কর্মকর্তাকে বদলি

0
8

আমার কাগজ প্রতিবেদক:
শিক্ষা প্রশাসনে ব্যাপক রদবদল করা হয়েছে। প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি দপ্তর, প্রকল্প পরিচালক, সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষসহ বিভিন্ন সংস্থার মধ্যম সারির শতাধিক কর্মকর্তাকে একদিনে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। নতুন করে এসব পদে পদায়ন করা হয়েছে একই আদেশে। যদিও পদায়নে শিক্ষা প্রশাসনের দাপটে নিয়ন্ত্রক সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সাবেক এপিএস মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ বলয়ের লোকদের পদায়ন বেশি করা হয়েছে। এরমধ্যে ১০টি কলেজে নতুন অধ্যক্ষ ১২টি কলেজে নতুন উপাধ্যক্ষ, দুটি প্রকল্পের নতুন প্রকল্প পরিচালক, সহকারী প্রকল্প পরিচালক দেয়া হয়েছে। ডা. দীপু মনি শিক্ষামন্ত্রী দায়িত্বে আসার পর বিভিন্ন অভিযোগে শিক্ষা প্রশাসনের গুরত্বপূর্ণ ২৯জন প্রভাবশালী কর্মকর্তাকে ওএসডি করা হয়। তাদের ঢাকার বাইরে বদলি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকে এসব কর্মকর্তার ওএসডির আদেশ জারি করা হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা সূত্রে জানা গেছে, গত বছর জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে শিক্ষা প্রশাসনে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদ ফাঁকা ছিল। নির্বাচনী তফসিল এবং নতুন মন্ত্রী আসায় এ পদগুলো পূরণ করতে একটু সময় লেগেছে। তফসিলের আগে অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক পদে দেড় হাজার কর্মকর্তার পদোন্নতি হয়। নতুন পদোন্নতিপ্রাপ্তদের নির্বাচনী তফসিল মানতে গিয়ে পদায়ন করতে পারেনি সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ডা. দীপু মনি শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর শিক্ষা প্রশাসনে দীর্ঘদিন ধরে একই পদে থাকা ও বিতর্কিত ২৯জন কর্মকর্তাকে বদলি করে সেটি উদ্বোধন করেন। পরে তাদেরকে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে ওএসডি করা হয়। সেই ওএসডি কর্মকর্তাদের বেশিরভাগ ঢাকার বাইরে বিভিন্ন সরকারি কলেজে পদায়ন করা হয়েছে।

গতকাল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের ১৩টি আদেশে শতাধিক কর্মকর্তার ডেস্ক বদলি ও নতুন পদায়ন করা হয়েছে। এরমধ্যে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) ১৫ জনকে বদলি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে এনসিটিবির ভিতরে দুইজন বাকি সবাইকে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের ওএসডি করা হয়েছে।

প্রশাসনে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক ড. মিয়া ইনামুল হক (রতন সিদ্দিকী) সহ ১৩ জন কর্মকর্তাকে ওএসডি করা হয়েছে। জানা গেছে, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ড. মিয়া ইনামুল হক, মাধ্যমিকের ঊর্ধ্বতন বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক মো. আবদুর রহিম, মাধ্যমিকের সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক নূর মোহাম্মদ এবং বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক হাসমত মনোয়ারকে ওএসডি করা হয়েছে। এছাড়া ওএসডি হওয়া কর্মকর্তাদের তালিকায় রয়েছেন, এনসিটিবির গবেষণা কর্মকর্তা সহযোগী অধ্যাপক মো. আবু সালেহ, প্রাথমিক শাখার বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক খ ম মঞ্জুরুল আলম, উপসচিব সহযোগী অধ্যাপক মো. সালাহ উদ্দিন, ঊর্ধ্বতন বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক চৌধুরী মুসাররাত হোসেন জুবেরী, ঊর্ধ্বতন বিশেষজ্ঞ সহযোগী অধ্যাপক জাহিদ বিন মতিন এবং প্রাথমিক শাখার বিশেষজ্ঞ সহকারী অধ্যাপক মো. মোস্তফা সাইফুল আলম। এছাড়া গবেষণা কর্মকর্তা সহকারী অধ্যাপক মো জিলস্নুর রহমান, গবেষণা কর্মকর্তা সহকারী অধ্যাপক মো. আবদুল মুমিন মোসাব্বির, গবেষণা কর্মকর্তা সহকারী অধ্যাপক তৈয়বুর রহমানকে ওএসডি করা হয়েছে। কুমিলস্না মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান করা হয়েছে অধ্যাপক মো. আবদুস সালামকে। তিনি একই বোর্ডের সচিবের দায়িত্বে ছিলেন।

এছাড়া ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক আশফাকুস সালেহীনকে তথ্যপ্রযুক্তি সহায়তায় ১৫০০ কলেজ উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এবং আবুল কালাম আজাদকে পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের (ডিআইএর) উপ-পরিচালক করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাসুদা বেগমকে নায়েমের উপ-পরিচালক পদে পদায়ন করা হয়েছে। এছাড়াও ১০টি কলেজের অধ্যক্ষ এবং ১২টি কলেজে নতুন উপাধ্যক্ষ দেয়া হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) উচ্চ শিক্ষার মান্নোয়নে একটি প্রকল্প থেকে ৭জন কর্মকর্তাকে এক সঙ্গে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। তারা সবই দীর্ঘদিন ধরে এ প্রকল্পে ছিলেন।

Leave a Reply