সোমবার নতুন মন্ত্রিপরিষদের শপথ

0
30

আমার কাগজ প্রতিবেদক :

নতুন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা আগামী সোমবার শপথ নেবেন। ওইদিন বিকেল ৩টায় বঙ্গভবনের দরবার হলে নতুন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা শপথ গ্রহণ করবেন।

বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে (শপথের) দিন তারিখ ঠিক হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী সোমবার বেলা সাড়ে ৩টায় বঙ্গভবনের দরবার হলে নতুন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা শপথ নেবেন।’

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে বঙ্গভবনে গেলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ একাদশ জাতীয় সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যদের আস্থাভাজন হিসেবে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানান।

বঙ্গভবনে শেখ হাসিনার সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সাক্ষাতের আগেই বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে সংসদ ভবনের শপথকক্ষে নির্বাচিত ২৯৮ জন সাংসদের মধ্যে ২৯১ জন শপথ নেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাতজন (বিএনপির ৫ জন ও গণফোরামের ২ জন) সাংসদ হিসেবে শপথ গ্রহণ করেননি। শপথ শেষে নতুন সংসদ সদস্যরা সংসদ সচিবের কার্যালয়ের সংরক্ষিত খাতায় সই করেন এবং একসঙ্গে তাদের ছবিও তোলা হয়।

তার আগে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পাঠানো গেজেট বুধবার সংসদ সচিবালয়ে পৌঁছায়। এর পর সংসদের পক্ষ থেকে শপথ অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য বিজয়ীদের কাছে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়।

সংসদ নির্বাচনের ফল গেজেট আকারে প্রকাশের তিন দিনের মধ্যে শপথ গ্রহণ এবং শপথ নেওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে সংসদের বৈঠক ডাকার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরুর ৯০ দিনের মধ্যে শপথ না নিলে বা স্পিকারকে না জানালে বিজয়ীদের আসন শূন্য হওয়ার বিধানও রয়েছে।

৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের পর বিজয়ীদের নাম ১ জানুয়ারি গেজেট আকারে প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন। ২৯৮ জনের নাম-ঠিকানাসংবলিত ওই গেজেট প্রকাশের পর নতুন এমপিদের শপথের আয়োজন করতে বুধবার সকালে সংসদ সচিবালয়ে আনুষ্ঠানিক চিঠি দেয় ইসি।

নির্বাচনে মহাজোটের শরিকদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ২৫৭ টি, জাতীয় পার্টি ২২টি, ওয়ার্কার্স পার্টি তিনটি, জাসদ দুটি, বিকল্পধারা দুটি এবং বাংলাদেশ জাসদ, তরীকত ফেডারেশন ও জাতীয় পার্টি (জেপি) একটি করে আসন পায়। এ ছাড়া বিএনপি পাঁচটি, গণফোরাম দুটি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা তিনটি আসন পায়।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here