করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬৯ হাজার ছাড়িয়েছে

    আমার কাগজ ডেস্ক :

    করোনাভাইরাস মহামারীতে অচল গোটা বিশ্ব। হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা। বিশ্বের অন্তত ১৩১টি দেশে চলছে লকডাউন।

    থেমে নেই মৃত্যুর মিছিল, প্রতি মুহুর্তেই বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। করোনায় প্রাণহানি ও অসুস্থদের পরিসংখ্যান রাখা প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড ওমিটারের তথ্য অনুযায়ী সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গোটা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ৭৩ হাজার ৫০০ জন।

    মারা গেছে ৬৯ হাজার ৪৫১ জন। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইউরোপ ও আমেরিকার। বেশিরভাগ মৃত্যু হয়েছে এ দুই মহাদেশে।
    বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় সবার উপরে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে ৩ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এতে মৃত্যু মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৬০২ জনের।

    যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় নিউইয়র্কে করোনায় আক্রান্ত ৫৯৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এ নিয়ে নিউইয়র্কে মৃতের সংখ্যা এখন ৪ হাজার ১৫৯।

    যুক্তরাষ্ট্রের পরই করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউরোপরে দেশ স্পেন। দেশটিতে ১ লাখ ৩১ হাজার ৬৪৬ জন করোনায় আক্রান্ত। সেখানে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৬৪১ জনের।

    করোনায় মৃতের দিক দিয়ে সবার উপরে রয়েছে ইতালি। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে দেশটিতে ১৫ হাজার ৮৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ২৮ হাজার ৯৪৮ জন।

    তবে করোনায় ইতালিতে গত দুই সপ্তাহের মধ্যে রোববার সর্বনিম্ন সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া টানা দুইদিন আশঙ্কাজনক অবস্থায় থাকা কোভিড-১৯ রোগীর হারও কমেছে দেশটিতে।
    এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লাখ ৬২ হাজারের বেশি।

    গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে প্রথম ছড়ায় প্রাণঘাতী এ ভাইরাস। দেশটিতে দ্বিতীয় দফায় তা ছড়াতে পারে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

    ওয়ার্ল্ড ওমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ইতালিতে- ১৫ হাজার ৮৮৭ জন। এরপরই আছে স্পেন। দেশটিতে মারা গেছেন ১২ হাজার ৬৪৪ জন। এ দুই দেশের পর বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯ হাজার ৬১৬ জন।

    মৃতের সংখ্যায় এরপর যথাক্রমে রয়েছে- ফ্রান্সে ৮ হাজার ৭৮ জন, যুক্তরাজ্যে ৪ হাজার ৯৩৪ জন, ইরানে ৩ হাজার ৬০৩ জন, চীনে ৩ হাজার ৩৩১ জন।

    করোনাভাইরান গোটা বিশ্বকে মৃত্যুপুরী বানিয়ে ফেলছে। মানুষকে করে ফেলেছে গৃহবন্দি। এ অবস্থায় সবার উচিৎ ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ মহামারীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা।

    আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

    Please enter your comment!
    Please enter your name here