কুড়িগ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধার অসুস্থ স্ত্রী অর্থভাবে মৃত্যুর প্রহর গুণছেন

0
5

প্রধানমন্ত্রীর কাছে সহায়তা কামনা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলীর স্ত্রী মোছাঃ রাবেয়া খাতুন (৬০) বিনা চিকিৎসায় ধুকে ধুকে মৃত্যুর প্রহর গুণছেন। টাকার অভাবে তার চিকিৎসা সম্ভব হচ্ছে না। চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা পেতে পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে।
সম্প্রতি সরেজমিন নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতর বন্দ উনিয়নের দেবেত্তর গ্রামে গিয়ে দেখা যায় মোছাঃ রাবেয়া খাতুন শয্যাশায়ী। তার বড় ছেলে আবুল কাশেম জানান, গত ৯মাস ধরে তার মায়ের সারা শরীরে ব্যথা ও বাম হাত বাম পা নড়াচড়া করতে খুব কষ্ট হয়। দিন দিন খাবার রুচি কমে যাচ্ছে। ভাতা পান না জানতে চাইলে আবুল কাশেম বলেন, আব্বা বেঁচে থাকতে ভাতার বিপরীতে সোনালী ব্যাংক থেকে তিন লাখ টাকা লোন নিয়ে ছোট বোনের বিয়ে দিয়েছে এবং কিছু দায় দেনা ছিল তা পরিশোধ করেছে। এখন ভাতা থেকে প্রতিমাসে ৮হাজার টাকা কাটে বাকী ৪হাজার টাকা দেয়। তাই দিয়ে মায়ের খাওয়া পরা ও চিকিৎসার ব্যয় করা হয়। ৬ পুত্র ১ কন্যা সন্তানের জননী রাবেয়া খাতুন কাতর কণ্ঠে বলেন, ভাই আমাকে বাঁচান। চিকিৎসার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আর্থিক সহায়তার আবেদনও করেন তিনি।
জানা গেছে, ছেলেদের বিয়ে হয়েছে তারা এখন সবাই পৃথক। বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী একজন ভূমিহীন দীনমজুর ছিলেন। বসত বাড়ীর জায়গাটুকু ছাড়া আর কিছু নাই। তার মুক্তিবার্তা নং-৬৬৮৭৩ আর সাময়িক সনদপত্র নং-কুড়িগ্রাম-৪০-১৪৮২।
যোগাযোগ করা হলে ভিতরবন্দ ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নাজিম উদ্দিন জানান, মরহুম বীব মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খুবই গরীব মানুষ ছিলেন, এখন তার স্ত্রী মরণাপন্ন। আমি দাবী করছি তাকে সরকারী ভাবে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হোক। নাগেশ্বরী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ডিপুটি কমান্ডার মতিয়ার রহমান নান্টু বলেন, আশরাফ আলীর অসুস্থ স্ত্রীকে সরকারীভাবে চিকিৎসা করার জন্য দাবি জানাচ্ছি।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here