কৃষিক্ষেত্রে দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা দূর করার বিকল্প নেই

করোনাকালীন সময়ে কৃষিই একমাত্র খাদ্য নিরাপত্তা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে প্রকৃত কৃষকদের বিনা শর্তে প্রণোদনা অব্যাহত রাখতে হবে। কৃষি খাতে অব্যবস্থাপনা বন্ধ করে কৃষকের স্বার্থে নীতিমালা সুনির্দিষ্ট করতে হবে।

রোববার (১২ জুলাই) জাতীয় কৃষক সমিতির সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় এসব কথা বলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম গোলাপ। সংগঠনটির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহমুদুল হাসান মানিক।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মধ্যস্বত্বভোগী লুটেরা ব্যবসায়ীদের স্বার্থে চাল আমদানি করার নীতি কৃষি খাতকেই ক্ষতিগ্রস্ত করবে। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত কৃষি প্রণোদনা সাধারণ কৃষকদের কোনো কাজে আসে নাই, অকৃষক-মধ্যস্বত্বভোগীরাই লাভবান হয়েছে।

দীর্ঘকালীন করোনাচক্র অব্যাহত থাকলে গ্রামীণ ও শহরের প্রান্তিক চাষী, ভূমিহীন দিনমজুর, ছিন্নমূল মানুষ, সকল মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হবে।

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নুর আহমদ বকুল, নজরুল ইসলাম হক্কানী, হাজী বশিরুল আলম, দীপংকর সাহা দিপু, নজরুল ইসলাম, হবিবুর রহমান, মোস্তফা আলমগীর রতন, গোলাম নওজব চৌধুরী পাওয়ার, আবুল কালাম আজাদ খান প্রমুখ।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here