গুগল ফটোজের সব ছবি একসঙ্গে ডাউনলোড করবেন যেভাবে

0
5

আগামী বছরের পহেলা জুন থেকে গুগল ফটোজ সার্ভিসে আর বিনামূল্যে যত ইচ্ছা ততো (আনলিমিটেড) ছবি রাখা যাবে না। সম্প্রতি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুগল। এই সিদ্ধান্তের ফলে ১৫ গিগাবাইটের বেশি ছবি রাখতে হলে গুগলকে দিতে হবে টাকা। তাই যারা অনলাইনে ছবি রাখতে টাকা দিতে আগ্রহী নন, তাদের জন্য প্রয়োজন বিকল্প পথ খোঁজা।

এক্ষেত্রেও সমাধান রয়েছে সেই গুগলের কাছেই। আপনাকে দ্বারস্থ হতে হবে ‘গুগল টেকআউটের’।

গুগল টেকআআউট হলো এমন একটি সার্ভিস যার মাধ্যমে আপনি নিজের গুগল অ্যাকাউন্টের বিভিন্ন সার্ভিসে জমা রাখা ডেটাগুলো একত্রে সিলেক্ট করে আর্কাইভ করতে পারবেন। এর সাহায্যে আপনি গুগল ড্রাইভে রাখা ফাইল, কন্ট্যাক্ট, ইউটিউব ভিডিও এবং গুগল ফটোজে থাকা গুরুত্বপূর্ণ ছবিগুলোকে ডাউনলোডও করতে পারবেন।

যেভাবে গুগল টেকআউট ব্যবহার করবেন

– প্রথমে পিসি বা স্মার্টফোন থেকে গুগল অ্যাকাউন্টে লগইন করুন। তারপরে টেকআউটে যান

– ওয়েবপেজটি লোড হলে ‘ডিসিলেক্ট অল’ (Deselect all) বাটনে ক্লিক করুন। এর মাধ্যমে অন্যান্য গুগল অ্যাপে থাকা ডেটাগুলো রিমুভ হওয়ার ঝুঁকি থাকে না।

– এরপরে স্ক্রল করে গুগল ফটোজ সিলেক্ট করুন

– এরপরে ‘নেক্সট স্টেপ’ (Next Step) বাটনটি ক্লিক করতে হবে

– এখন আপনি কতদিন পর পর অটোমেটিক্যালি ডেটা এক্সপোর্ট হবে, তা ঠিক করে দিতে পারবেন। আর এখানে ফাইলগুলো আপনি কোন ফরম্যাটে এক্সপোর্ট করতে চান সেটাও বেছে নিতে হবে। আপনি নিজের পছন্দ মতো .zip বা .tgz যে কোনোটি বেছে নিতে পারেন।

– এরপর ‘ক্রিয়েট এক্সপোর্ট’ (Create Export) বাটনে ক্লিক করুন

– গুগল এখন আপনার ই-মেইলে একটি ভেরিফিকেশন মেইল পাঠাবে। সেখানে বলা থাকবে ‘An archive of Google data has been requested,’ মেইলে থাকা লিংকটিকে অবশ্যই অ্যাপ্রুভ করতে হবে।

– অ্যাপ্রুভ করে দিলেই ডেটা এক্সপোর্ট প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। পুরো প্রসেস শেষ হতে কয়েক ঘণ্টা থেকে কয়েকদিনও লেগে যেতে পারে। এটা নির্ভর করে আপনার ডেটা সাইজের ওপর।

শেষ হয়ে গেলে গুগল আপনার সমস্ত ডেটা একটি ইমেইলের মাধ্যমে আপনার কাছে পাঠাবে।

এরপর আপনি সেই ডেটাগুলোকে আপনার ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনে ডাউনলোড করে রাখতে পারেন। চাইলে পরে গুগল ছাড়া বিনামূল্যে সেবা দেয় এমন কোনো ক্লাউড স্টোরেও জমা রাখতে পারেন। অথবা রাখতে পারেন পেনড্রাইভ বা হার্ডডিস্কেও।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here