চ্যাম্পিয়নের মতোই লিগ শেষ করল ‘চ্যাম্পিয়ন’ বায়ার্ন

0
4

বায়ার্ন মিউনিখের শিরোপা নিশ্চিত ছিল আগেই। বাকি ছিল লিগ শেষ হওয়ার আনুষ্ঠানিকতা। শনিবার রাতে হয়ে গেল সেটিও। চ্যাম্পিয়নের মতো বড় জয়েই এবারের বুন্দেসলিগার মৌসুম শেষ করল টানা অষ্টমবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন।

শনিবার রাতে লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে ওলফসবার্গকে ৪-০ গোলে হারিয়েছে হানস ফ্লিকের শিষ্যরা। প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে গিয়ে শুরু থেকে শেষপর্যন্ত একচ্ছত্র আধিপত্য ছিল বাভারিয়ানদের। স্বাগতিক ওলফসবার্গও বেশ কিছু আক্রমণ করেছে। তবে সেগুলো রুখে দিতে সমস্যা হয়নি বায়ার্ন রক্ষণের।

চার গোলের জয়ে এবারের বুন্দেসলিগার মৌসুমে সেঞ্চুরি পূরণ হয়েছে বায়ার্নের। অর্থাৎ লিগের ৩৪ ম্যাচে বায়ার্নের গোলসংখ্যা ঠিক ১০০, বিপরীতে তারা হজম করেছে মাত্র ৩২টি। লিগ শেষে ২৬ জয় ও ৪ ড্র নিয়ে তাদের সংগ্রহ ৮২ পয়েন্ট। দ্বিতীয় হওয়া বরুশিয়া ৩৪ ম্যাচ শেষে অর্জন করেছে ৬৯ পয়েন্ট।

ওলফসবার্গের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচে মাত্র চতুর্থ মিনিটেই লিড নেয় বায়ার্ন। জার্মান ফরোয়ার্ড থমাস মুলারের কাছ থেকে বল পেয়ে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন ফ্রেঞ্চ মিডফিল্ডার কিংসলে কোম্যান। ম্যাচের ৩৭ মিনিটে দ্বিতীয় গোলও করেন আরেক মিডফিল্ডার। বাঁ পায়ের বাঁকানো শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন কুইসেনস।

প্রথমার্ধে দুই গোলের পর অন্য দুই গোল হয় দ্বিতীয়ার্ধে। এবারও জড়িয়ে কুইসেনসের নাম। ডি-বক্সের মধ্যে তাকে ফাউল করেন ওলফসবার্গ অধিনায়ক জশুয়া, দেখেন লাল কার্ড। পেনাল্টি পায় বায়ার্ন। সফল স্পটকিক থেকে ব্যবধান বাড়ানোর পাশাপাশি লিগে নিজের ৩৪তম গোলটি করেন রবার্ট লেওয়ানডোস্কি।

এর মিনিট সাতেক পর স্বাগতিক দলের কফিনে শেষ প্যারেক ঠুকে দেন প্রথম গোলের এসিস্টকারী থমাস মুলার। প্রতিপক্ষের রক্ষণের ভুলে ডি-বক্সে বল পেয়ে যান মুলার। জালের ঠিকানা খুঁজে নিতে কোন সমস্যা হয়নি তার। বায়ার্ন পায় ৪-০ গোলের সহজ জয়।

অন্যদিকে লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে ০-৪ গোলে হেরে গেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। এতে কোন সমস্যা হয়নি অবশ্য। লেইপজিগ ও মনশেনগ্ল্যাডব্যাখকে সঙ্গে নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের টিকিট আগেই নিশ্চিত করেছে ডর্টমুন্ড।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here