নেইমারের হ্যাটট্রিকে ঘুরে দাঁড়ানো জয় ব্রাজিলের

0
2

ক্রীড়া ডেস্ক:

খেলার প্রথমার্ধের শুরুতেই গোল করে এগিয়ে যায় পেরু। এরপর নেইমারের গোলে সমতায় ফেরে ব্রাজিল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুটাও গোল হজম করে শুরু হয় নেইমারদের। দুইবার এভাবে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত জেতা হয়নি পেরুর। এক নেইমারের কাছেই হেরে যায় তারা। ৪-২ গোলের এই ম্যাচের ব্রাজিলের চার গোলের তিনটিই আসে নেইমারের পা থেকে। মূলত তার কাছেই হেরে জয়ের স্বপ্ন ধুলিস্যাৎ হয় পেরুর।

বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে ৪-২ গোলে জিতেছে রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে তিতের শিষ্যরা। ষষ্ঠ মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন আন্দ্রে কারিয়ো। তবে ব্যবধানটা বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তারা।

২৮তম মিনিটে নেইমারের সফল স্পট কিকে সমতায় ফেরে ব্রাজিল। ডি-বক্সে পিএসজি ফরোয়ার্ডকে পেরুর মিডফিল্ডার ইয়োতুন জার্সি টেনে ধরে খেলতে বাধা দেওয়ায় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। এরপর দুই দল অনেক চেষ্টা করলেও প্রথমার্ধে আর কেউ গোল করতে পারেনি। ১-১ গোলের সমতা দিয়েই শেষ হয় প্রধমার্ধ।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে নেমে ম্যাচের ৫৯তম মিনিটে রেনাতো তাপিয়ার গোলে আবারও পিছিয়ে পড়ে ব্রাজিল। এবারও ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে দেয়নি পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। রবার্তো ফিরমিনোর পাস থেকে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান রিচার্লিসন। আর ম্যাচের অন্তিম মুহুর্তে জ্বলে ওঠেন নেইমার। ৮৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন পিএসজি ফরোয়ার্ড।

এগিয়ে থাকার পরও উল্টো পিছিয়ে পড়ে ম্যাচের শেষদিকে ৯ জনের দল হয়ে পড়ে পেরু। উত্তেজনা ছড়ানো ম্যাচটিতে ৮৬তম মিনিটে তাদের কার্লোস চাচেদা এবং ৮৯তম মিনিটে কার্লোস জামব্রানো লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। সেই সুযোগে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন নেইমার। যোগ করা চতুর্থ মিনিটে দলের চতুর্থ গোলটি করেন তিনি। সেই সঙ্গে দুর্দান্ত মাইলফলক গড়ার পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেলেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

জাতীয় দলের হয়ে রোনালদো নাজারিওকে টপকে ব্রাজিলের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ওঠে এসেছেন। নেইমারের ওপরে আছেন কেবল ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল করা ফুটবল কিংবদন্তি পেলে।

ফেনোমেনন খ্যাত রোনালদো ৯৮ ম্যাচে করেছেন ৬২ গোল। নেইমারের গোল সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৪।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here