বাংলাদেশ-কোরিয়া বন্ধুত্ব দীর্ঘজীবী হোক : সংস্কৃতিমন্ত্রী

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, দক্ষিণ কোরিয়া আমাদের দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত বন্ধু। দেশটি শুধু আমাদের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখেনি বরং আমাদের সাংস্কৃতিক উন্নয়নেও অবদান রেখে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর ও সোনারগাঁওয়ের ঐতিহ্যবাহী সরদারবাড়ির সংস্কার ও উন্নয়নে দেশটির ভূমিকা রয়েছে। আশাকরি, আমাদের উন্নয়ন সহযোগী দেশ হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়া ভবিষ্যতে আরও সক্রিয়ভাবে তাদের সহযোগিতার ধারা অব্যাহত রাখবে। বাংলাদেশ-কোরিয়া বন্ধুত্ব দীর্ঘজীবী হোক।

বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর হোটেল লা মেরিডিয়ানে কোরিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (কইকা) এবং কেবিএএ বাংলাদেশ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এজিএম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া কেবল আমাদের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান করেনি বরং আমাদের বুদ্ধিবৃত্তিক উন্নয়নেও ভূমিকা রাখছে। প্রতি বছর বহু ডাক্তার, প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ব্যক্তি তাদের উচ্চতর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের প্রয়োজনে দক্ষিণ কোরিয়া সফর করছেন। মন্ত্রী এ সময় কেবিএএ এর প্রতিটি সদস্যকে কোরিয়ায় বাংলাদেশের অ্যাম্বাসেডর বলে অভিহিত করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম এবং অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ এর অতিরিক্ত সচিব (এশিয়া উইং প্রধান) জাহিদুল হক।

আরও বক্তব্য রাখেন কেবিএএ’র প্রেসিডেন্ট এবং রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন এবং কইকা বাংলাদেশ অফিসের কান্ট্রি ডিরেক্টর জো হিউন গু। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ শিশু পরিবারের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here