মানিক চন্দ্র দে’র কবিতা

0
33

ভালোবাসার রঙ

ভালেবাসার রঙেরা কি আকাশের মত?
সময়ের সাথে  বদলাতে পারে।
কখনো বা লজ্জারাঙা কিশোরীর ঠোঁট,
পবিত্রতার আবেগের গভীরতায়
 ফিনকি দিয়ে ঝরে ঝরে পড়ে।
সবুজ ঘাসের ‘পরে, লাল গোলাপ!
কখনো আবার সে যেন কালো গোলাপের মত
দেহপসারিণীর ঠোঁটে মাখা কৃত্রিম লিপস্টিক!
টাকা বা ডলারের ধারে – ভারে রক্ত ঝরায়
রঙিন বিছানায়।
 তোমাকে তো দেখেছিলেম,  উত্তম সুচিত্রার ‘সাগরিকা’য়
ভালোবাসার আবেশে কাঁপা, ঝরেপরা অশ্রুকণায়।
‘হারানো সুর’ রা হারিয়ে যেতে যেতেও হারাতোনা।
‘প্রেমের মরা জলে ডোবেও ডোবে না’র মত।
“নীর ছোট ক্ষতি নেই, আকাশ তো বড়!”
এমনই ছিল ভালোবাসারা আকাশের উজ্জ্বল নক্ষত্রের মত।
সিগারেট ফুঁকা সেই যে যুবক,
না থাক কিছু তার! আছে তো আবেগ,
আছে কল্পনা, আছে ভালোবেসে
সখীকে নিয়ে আকাশে উড়ার কৌশল আর
ডানায় মজবুত পিষ্টনের শক্তি।
আর আছে চেহারার কান্তিময়তা।
আর কি চাই?
বিশ্বস্ত ডানায় প্রেমিকাকে উড়াবে আকাশের নীলিমায়!  কিম্বা দৃপ্তপায়ে যাবে পাতালের অন্ধ গহ্বরে।
দেখবে, কেমন করে রাজকণ্যারা  ঘুমিয়ে আছে পাতালপুরীতে !
অথবা ঐ যে রাজপুত্র তার পঙ্খীরাজ ঘোড়ায় চেপে
রাজকুমারীর ঘুম ভাঙ্গিয়ে  তাকে মুক্ত করে টগবগিয়ে
ছুটবে অসীমের পানে!
এখন তো রাজকুমারীর সেই সাহসী রাজকুমারের প্রয়োজন নেই।
চাই  দামী শাড়ী ,  লেটেষ্ট গাড়ী, আর বাড়ি?
সেতো চাই ই ; তবে যেমন তেমন নয় কিন্তু!
মনে থাকে যেন!  ফুলের বাগানওলা ভিলাবাড়ি।
তোমার না থাক আবেগ, না থাক  চেহারার কান্তিময়তা
আছে তে বাড়ি? কর্পোরেটে লোভনীয় চাকরি অথবা ব্যবসা?
সুখ, জৌলুশ, শক্তি সব কেনা যাবে চোখের ইশারায়।
আর কী চাই?
তোমাকেই তো খুঁজে বেড়াই!
প্রেমকে কেয়ার করি থোরাই।
আমাকে নিয়ে  যাবে তুমি  ভূগোলের এপিঠ ওপিঠ!
 পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম স্হানগুলোর অক্সিজেনে
পুষ্ট হবে আমার ফুসফুস ও ধমনী।
তুমিই তো  আমার  ভালবাসার যোগ্যতম পুরুষ!
কি করবো শুধুই  হৃদয়ের ভালবাসা দিয়ে,
সৃজনী,  হৃদয়! ওগুলো ধূয়ে কি জল খাব?
বেচাকেনার হাটে এখন যে সব কেনাবেচা যায়।
আর সুপুরুষ? সে না হয় নাটক বা সিনেমায় দেখে নেব!
ভালোবাসার কথা তো মান্না দে, লতা, প্রতিমা, হেমন্ত বা এস ডি বর্মনেরা  অনেক বলে গেছে।
 থাকনা এখন ওগুলো পুরনো গ্রামোফোনে কিম্বা
আধুনিক  গুগল ড্রাইভে!
দেখে নেবো ক্ষণ ইউটিউবে!
ভালোবাসাকে ভরে রাখবো ডীপে।
ফ্রজেন  হলোই বা, ক্ষতি কি?
ফ্রজেনে তো আর পচন ধরেনা।
হয়তো রঙটা একটু বদলাবে।
এভাবেই ভালোবাসার রঙেরা বদলে যায়।

 

কপিরাইট © মানিক চন্দ্র দে

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here