রাজধানীতে ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, হাসপাতালে ভর্তি

রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এরপর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ওই ছাত্রীর সহপাঠীরা জানান, তিনি ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী এবং রোকেয়া হলে থাকেন। গতকাল রোববার ক্লাস শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে চড়ে শ্যাওড়ায় এক বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন ওই শিক্ষার্থী। ভুল করে এর আগের বাসস্টপ কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে নেমে পড়েন তিনি। ওই সময় ফুটপাত দিয়ে হেঁটে যাওয়ার একপর্যায়ে হঠাৎ করে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি পেছন থেকে তাঁর মুখ চেপে ধরে। এরপর তাঁর সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করে। পরে তাঁকে পাশের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ওই ছাত্রীকে শারীরিকভাবেও নির্যাতন করা হয় বলেও জানান তাঁরা।

পরে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী নিজেই শ্যাওড়ায় তাঁর বান্ধবীর বাসায় চলে যান। সেখান থেকে আরো সহপাঠীদের জানানোর পর তাঁকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আবদুল খান জানান, ঢাবি ছাত্রীকে রাতেই হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ (ওসি) পুলিশ কর্মকর্তারা হাসপাতালে যান। এ ব্যাপারে বিস্তারিত তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ধর্ষণের খবর ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে রাতেই ঢামেক হাসপাতালে ভিড় করতে থাকেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। ভুক্তভোগীর খোঁজ-খবর নিতে রাতেই হাসপাতালে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এ সময় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তাঁরা ধর্ষকের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। ঘটনার প্রতিবাদে আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ঢাবি ক্যাম্পাসে মানববন্ধনের ঘোষণা দেন তাঁরা।

এদিকে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি কাজী রওনক ইসলাম শ্রাবণ সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাংলাদেশে কেউ নিরাপদ নেই। কারোই ব্যক্তি স্বাধীনতা ও সামাজিক স্বাধীনতা নেই। রাজধানীর মতো একটি জায়গায় ঢাকা বিশ্বিবিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হন, এটিই প্রমাণ করে, বাংলাদেশে কারোরই নিরাপত্তা নেই। প্রশাসনের ব্যর্থতার জন্য সরকারকে দায় নিয়ে পদত্যাগ করা উচিত। পাশাপাশি ঢাবির প্রক্টর ও উপাচার্যেরও দায়িত্বে অবহেলার জন্য পদত্যাগ করতে হবে।’

এ ঘটনায় আজ সোমবার বেলা ১১টায় ঢাবি ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ মিছিল করবে ছাত্রদল।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here