রেলওয়ের গেটম্যানকে মারধর, ইউএনও’র বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি :

0
6

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কাউসার আজিজের বিরুদ্ধে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের থানায় দায়ের করা অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. গোলাম মোস্তফা। সোমবার (১৮ নভেম্বর) তিনি কুলিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ঘটনার বাদী-বিবাদীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেন।

এ সময় রেলওয়ের অভিযোগকারী গেটম্যান সিফরাত হোসেন, রেলওয়ের ভৈরব অফিসের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী জিসান দত্ত, কিশোরগঞ্জ রেলওয়ের প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জান, কুলিয়ারচর থানা পুলিশের ওসি মো. আ. হাই তালুকদার, ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশের এসআই সুরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

অভিযুক্ত ইউএনও কাউসার আজিজ ও তার অফিস পিয়ন হিমেলসহ কয়েকজন সাক্ষীও এ সময় উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. সুলতান আলী গত ১১ নভেম্বর ভৈরব রেলওয়ে থানায় অভিযোগ দেয়ার দুদিন পর ঘটনাটি তদন্ত করতে কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সারোয়ার মুর্শেদ চৌধুরী এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

তদন্ত কমিটির একমাত্র সদস্য কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. গোলাম মোস্তাফা জানান, তদন্তের বিষয়ে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়। তদন্ত শেষ হলে রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে।

গত ৮ নভেম্বর দুপুরে কুলিয়ারচর এলাকায় বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন আসার সংকেত পেয়ে রেলওয়ের গেটম্যান সিফরাত হোসেন রেলওয়ের ব্যারিয়ার ফেলে দেন। এ সময় সড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ঘটনার সময় ব্যারিয়ার ফেলায় ইউএনও কাউসার আজিজের গাড়িটি আটকা পড়ে।

পরে এ নিয়ে গেটম্যানের সঙ্গে ইউএনও এবং তার অফিস পিয়ন তর্কে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে গেটম্যানকে ইউএনও ও তার পিয়ন গালিগালাজ ও মারধর করে বলে অভিযোগ এনে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ভৈরব রেলওয়ে থানায় একটি অভিযোগ দেয়।

ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশের এসআই মো. সুরুজ্জামান বলেন, আমাদের থানায় দেয়া অভিযোগটি এখনও এফআইআর করা হয়নি। সোমবার তদন্তকালে আমাকে ডাকা হলে সেখানে আমি উপস্থিত ছিলাম। অভিযোগের বিষয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার কমেন্ট এখানে পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here